Share on social media

ইতালিতে প্রবেশের অনুমতি পেয়েছেন মিলান ইমিগ্রেশনে আটকে পড়া ১২ জন বাংলাদেশি। তবে তাদের বাসায় ফিরে দুই সপ্তাহের জন্য কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে হবে বলে জানিয়েছেন দেশটির ইমিগ্রেশন পুলিশ।

মঙ্গলবার ভোরে দেশটির ইমিগ্রেশন পুলিশ তাদের ইতালিতে প্রবেশের অনুমতি দেয়।

গত সোমবার স্থানীয় সময় দুপুরে এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট বাংলাদেশ থেকে দুবাই হয়ে ইতালির বাণিজ্যিক শহর মিলানে পৌঁছালে নিয়ম না মেনে দেশটিতে যাওয়ার কারণে ১২ বাংলাদেশিকে আটকে দেয় দেশটির ইমিগ্রেশন পুলিশ। পরে তাদের বিরুদ্ধে নিয়ম অমান্য করার অভিযোগ এনে ফিরতি ফ্লাইটে আবারো বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু করে মিলান ইমিগ্রেশন।

এসব প্রবাসীদের যেন বাংলাদেশে ফেরত না পাঠায় সেজন্য দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে বারবার টেলিফোনে আলাপ করেন দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত আব্দুস সোবাহান সিকদার।

গণমাধ্যমকে মিলানে আটকে পড়া যাত্রী মাসুদ আহমেদ বলেন, ‘আমরা এমিরেটস এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে বাংলাদেশ থেকে মিলান এসে পৌঁছালে মিলান ইমিগ্রেশন পুলিশ ইতালির দীর্ঘমেয়াদী রেসিডেন্ট পারমিটধারীদের ইমিগ্রেশন পার হতে দিলেও আমরা যারা নরমাল বা স্বল্পমেয়াদী রেসিডেন্ট পারমিটধারী তাদের বের হতে না দিয়ে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর কথা বলে। পরে আমরা ইতালির অভিবাসন পরামর্শক মাঈনুল ইসলাম নাসিম নামে এক ভদ্রলোকের সঙ্গে কথা বলি। পরে তিনি মিলানের এক উকিল ও দেশটির বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলেন এবং কি কারণে ফেরত পাঠানো হবে তা জানতে ব্যাখ্যা চান। এরপর মিলান ইমিগ্রেশন আমাদের মঙ্গলবার ভোরে দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি দেয়।

উল্লেখ্য, দীর্ঘদিন বাংলাদেশের সঙ্গে ইতালির ফ্লাইট বন্ধ থাকার পর ইতালি সরকার শর্তসাপেক্ষে বাংলাদেশের সঙ্গে ফ্লাইট চালু করে। এরপর শনিবার বাংলাদেশ থেকে কাতার এয়ারওয়েজ বাংলাদেশ থেকে ইতালির উদ্দেশে একটি ফ্লাইট পরিচালনা করে। তবে দেশটির ফ্লাইট চালুর ঘোষণায় প্রথমাবস্থায় তারা বাংলাদেশে আটকে পড়া দীর্ঘমেয়াদী রেসিডেন্স পারমিটধারীদের নেওয়ার কথা জানালেও বাংলাদেশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একটি বিজ্ঞপ্তিতে ভ্যালিড পারমিট কার্ডধারীরাও যেতে পারবে বলে জানায়। কিন্তু মিলান ইমিগ্রেশন পুলিশ শুধুমাত্র দীর্ঘমেয়াদী পারমিট কার্ডধারীদের দেশটিতে প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে।


Share on social media

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here