Share on social media

গাজীপুরের কালীগঞ্জে নাগরী ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে ২০ অক্টোবর ভোট গ্রহণ। আর এই উপ-নির্বাচনকে ঘিরে উপজেলা নির্বাচন অফিস ইতোমধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। ভোট গ্রহণকে কেন্দ্র করে ওই ইউনিয়নের উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে। সরব হয়ে আছে প্রতিটি ওয়ার্ড, গ্রাম ও পাড়া-মহল্লা। তবে ভোটারদের মুখে মুখে উন্নয়নের মার্কা নৌকার কথাই বেশি শোনা যাচ্ছে। উন্নয়নের জোয়ারে সরকার দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী অলিউল ইসলাম অলি নৌকা ভাসিয়ে, বিরোধী দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী আব্দুর রহিমের ধানের শীষকে ডুবাতে চান।

স্থানীয় সিভিল ও পুলিশ প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে তাদের পক্ষ থেকে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে ভোট কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারে সেজন্য নেওয়া হয়েছে কয়েক স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ইতোমধ্যে নির্বাচনকে ঘিরে ওই ইউনিয়নের ৩টি পয়েন্টে চেক পোস্ট স্থাপন করা হয়েছে। এছাড়া নির্বাচনী এলাকায় পুলিশের ৪টি মোবাইল টিম কাজ করছে। ইউনিয়নের ১৪টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। প্রতিটি কেন্দ্রে ২৭ জন করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যগণ উপস্থিত থাকবেন। প্রতিকেন্দ্রে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ছাড়াও নির্বাচনী এলাকায় ২ প্লাটুন র‌্যাব ও ২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন থাকবে। সব মিলিয়ে উপ-নির্বাচনকে ঘিরে ওই ইউনিয়ন থাকবে নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা।

স্থানীয় ও উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নাগরী ইউনিয়নটি খ্রিস্টান অধ্যুষিত এলাকা হিসেবে ওই ইউনিয়নটি ধরা হয় নৌকার ভোট ব্যাংক। ওই ইউনিয়নের উপ-নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের অলিউল ইসলাম অলি (নৌকা), বিএনপির আব্দুর রহিম (ধানের শীষ), স্বতন্ত্র এ্যাড. সিরাজ মোড়ল (চশমা), মো. মুজিবুর রহমান (আনারস), সাখাওয়াত হোসেন মামুন (ঘোড়া) ও মো. মোজাম্মেল হক কাকন (মোটরসাইকেল) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ৬ জন প্রার্থী ৩০ হাজার ৮৭ জন ভোটারের দৃষ্টি কাড়তে তাদের এই প্রতিযোগীতা। তবে প্রথমেই তারা ১৪ হাজার ৯০৮ জন মহিলা ভোটারের মন জয় করতে চান। এছাড়াও ওই ইউনিয়নে ১৫ হাজার ১৭৯ জন পুরুষ ভোটার রয়েছে।

সরেজমিনে ওই ইউনিয়নের সাধারণ ভোটারদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, উন্নয়নের মার্কা হিসেবে তারা নৌকাতেই তাদের আস্থা রাখছেন। এগিয়েও রাখছেন নৌকাকেই। সেই হিসেবে আওয়ামী লীগের প্রার্থী অলিউল ইসলাম অলির নৌকা সবার মুখে মুখে। উন্নয়নের জোয়ারে অলি সমর্থকরা নৌকা ভাসিয়ে রহিমের ধানের শীষকে ডুবাতে চায়।

উপজেলা নির্বাচন ও রির্টানিং কর্মকর্তা ফারিজা নূর জানান, ওইদিন পুরো জেলার মধ্যে একমাত্র নাগরী ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তাই জেলার সবার আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দু এই নির্বাচন। নির্বাচনকে স্বচ্ছ ও গ্রহনযোগ্য করতে তাদের সকল প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন আছে বলেও জানান ওই কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, নাগরী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল কাদির মিয়া চলতি বছরের ২৫ ফেব্রুয়ারি চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকার একটি হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেন। এরপর ওই ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদ শূন্য ঘোষণা করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। এর আগে ২০১৬ সালের ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আব্দুল কাদির মিয়া নির্বাচিত হন।


Share on social media

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here