Share on social media

শব্দের গতির চেয়ে পাঁচ গুণেরও বেশি গতি সম্পন্ন ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপক বোমারু বিমান তথা হাইপারসনিক বিমানের সফল পরীক্ষা চালিয়েছে চীন।

এটি মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে ভেদ করে পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করতে সক্ষম। মার্কিন প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পেন্টাগনের কর্মকর্তারা এই সাফল্যের ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার কথা জানিয়েছেন।

চীনের তৈরি এই হাইপারসনিক গ্লাইড ভেইকেল সম্প্রতি পরীক্ষা করা হয়েছে এবং ডাব্লিউ-১৪ নামে এই বিমান সর্বোচ্চ গতির রেকর্ড সৃষ্টি করেছে বলেও জানিয়েছেন তারা।
চীনের কাছে আন্তঃমহাদেশীয় ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে এবং এই দেশটি এই ক্ষেপণাস্ত্র গুলির গতি শব্দের গতির চেয়ে ১০ গুণ বৃদ্ধি করার লক্ষ্য নিয়েছে বলেও জানা গেছে। হাইপারসনিক গতি বলতে ঘণ্টায় ৩,৮৪০ মাইল থেকে ৭,৬৮০ মাইল পর্যন্ত বোঝায়।

উল্লেখ্য, শব্দের গতিবেগ ঘণ্টায় ১,২৩৪ কিলোমিটার বা ৭৬৭ মাইল। মার্কিন বিমান বাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা মার্ক স্ট্রোক জানিয়েছেন চীন মূলত দুই ধরণের হাইপারসনিক বিমান তৈরির চেষ্টা চালাচ্ছে।

তিনি মনে করেন, এই ধরণের বিমানের গতি ৯,১২৭ মাইল পর্যন্ত হতে পারে এবং তা মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থাকে এড়াতে সক্ষম। চীন ছাড়াও বর্তমানে এই ধরণের ক্ষেপণাস্ত্র বিমান তৈরির চেষ্টায় রয়েছে আমেরিকা, ভারও ও রাশিয়া।

সূত্র: কলকাতা*২৪।


Share on social media

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here